গোয়াইনঘাটে পাহাড়ি ঢলে নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

মোঃআজিজুর রহমান, গোয়াইনঘাট;
  • প্রকাশিত: ২৯ মে ২০২৪, ১০:০৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে

অতিবৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে আকস্মিক বন্যায় সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার নিম্নাঞ্চল ও হাওরাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

উপজেলার সালুটিকর -গোয়াইনঘাট প্রধান সড়ক বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে উপজেলা সদরের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে ।

জানা যায়, উপজেলার সারিঘাট-গোয়াইনঘাট সড়কের দুটি পয়েন্টে গোয়াইনঘাট-রাধানগর-জাফলং সড়কের শিমুলতলা পয়েন্ট প্লাবিত হয়েছে।উপজেলার হাওরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চল এলাকার হাজারো মানুষ এখন পানিবন্দী হয়ে আছে।

উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নের মধ্যে বিছনাকান্দি, রুস্তমপুর, লেংগুড়া, ডৌবাড়ি, নন্দীরগাঁও, পূর্ব ও পশ্চিম আলীরগাও, পশ্চিম জাফলং, মধ্য জাফলংয়ে প্লাবনের পরিমাণ বেশি হয়েছে।

বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যগন, ভলান্টিয়ার সহ আকস্মিক বন্যাজনিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় নিয়োজিত আছেন।

বুধবার (২৯ মে)দুপুর ১২ টায় পাওয়া তথ্য অনুযায়ী গোয়াইনঘাট ব্রীজ পয়েন্টে পানির লেভেল ১০.১১ মিটার বন্যাসীমা: ১০:৮২ এবং সারি ঘাট পয়েন্টে পানির লেভেল ১২.৮৮ বিপদ সীমা: ১২.৩৫ বিপদসীমার উপরে দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম ও উপজেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মনিটরিং সেলের অফিসারগণ পিআইও, কৃষি অফিসার, মৎস্য অফিসার, প্রাণিসম্পদ অফিসার সহ জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বন্যা দুর্গত ও ঝুঁকিপ্রবণ এলাকা সমূহে জনপ্রতিনিধিগণ সহ সরেজমিনে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

যে সকল এলাকায় ঝুঁকি পূর্ণ ও প্লাবিত হতে পারে সে সকল এলাকার ঘরবাড়ি, বাজার ও দোকান সমূহ থেকে জানমাল নিরাপদে সরিয়ে নেয়ার জন্য স্থানীয়দের সতর্ক করা হচ্ছে।

গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ তৌহিদুল ইসলাম বলেন,অতিবৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নিম্নাঞ্চল ও হাওরাঞ্চ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নে মোট ৫৬ টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রয়েছে। অতি ঝুঁকিপূর্ণ ও প্লাবণ প্রবণ এলাকায় আশ্রয় কেন্দ্রে জনগণকে দ্রুত অবস্থান নিতে মাইকিং করা হচ্ছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বন্যার পানি বাড়ছে এমন খবর পাওয়া গেছে অতিবৃষ্টি ও বৈরীআবহাওয়া অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি