সিসিক নির্বাচনে পাঁচ মেয়রপ্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল, লড়াইয়ে রইলেন ৬ জন

নিজস্ব প্রতিবেদক ;
  • প্রকাশিত: ২৫ মে ২০২৩, ৪:২৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১১ মাস আগে

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনে পাঁচ স্বতন্ত্র মেয়রপ্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়েছে। মনোনয়নপত্রের সঙ্গে জমা দেওয়া ৩০০ জন ভোটারের স্বাক্ষরের সাথে যাচাই বাছাইয়ে অমিল পাওয়ায় তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) দুপুরে সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে মেয়র পদপ্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই শেষে প্রার্থীদের এ তথ্য জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফয়সল কাদির। সেসময় বৈধ ও বাতিল প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন তিনি।

মনোনয়ন বৈধ হওয়া প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী (নৌকা), জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাবুল (লাঙ্গল), ইসলামী আন্দোলনের মেয়র প্রার্থী হাফিজ মাওলানা মাহমুদুুল হাসান (হাতপাখা) ও জাকের পার্টি প্রার্থী মো. জহিরুল আলম, স্বতন্ত্রপ্রার্থী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মোহাম্মদ আবদুল হানিফ কুটু , স্বতন্ত্রপ্রার্থী মো. ছালাহ উদ্দিন রিমন।

মনোনয়ন বাতিল হওয়া মেয়রপ্রার্থীদের সবাই স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন। তারা হলেন- সামছুন নুর তালুকদার, মোহাম্মদ আব্দুল মান্নান খান, মাওলানা জাহিদ উদ্দিন, মো. শাহজাহান মিয়া, মোশতাক আহমেদ রউফ মোস্তফা।

রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ফয়সল কাদির জানান, যাদের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে তাঁরা আগামী তিন দিনের আপিল করতে পারবেন।

এর আগে গত ২৭ এপ্রিল থেকে ২৩ মে পর্যন্ত সিলেট আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ শুরু করেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা। ২৭ দিনে মেয়র পদে মোট ১১ ও কাউন্সিলর পদে ৪৫৬ জন মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। তবে ৮০ জন ফরম দাখিল করেননি।

আগামী ১ জুনের মধ্যে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করতে পারবেন প্রার্থীরা৷ ২ জুন প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। আর ২১ জুন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০২ সালে। ৭৯ দশমিক ৫০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই মহানগরে ওয়ার্ড ৪২টি। মোট ভোটার ৪ লাখ ৮৬ হাজার ৬০৫ জন। এরমধ্যে পুরুষ ২ লাখ ৫৩ হাজার ৭৬৩ ও নারী ২ লাখ ৩২ হাজার ৮৪২ জন। মোট কেন্দ্র ১৯০টি এবং ভোটকক্ষ ১হাজার ৩৬৪টি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি