ব্রোকলি চাষে সফলতা পেল শ্রীমঙ্গলের চাষি শরিফ মিয়া

মনজু বিজয় চৌধুরী, শ্রীমঙ্গল ;
  • প্রকাশিত: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৬:৫৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ মাস আগে

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে উপজেলার টিকরিয়া গ্রামের সবজি চাষি শরিফ মিয়ার ব্রোকলি চাষে সফলতা এসেছে। দুই বছর আগে তার জমিতে সে সময় তিনি ১২ হাজার চারা লাগিয়ে উৎপাদিত ব্রোকলি বিক্রি করে ৬ লাখ টাকা আয় করেন। এরপর থেকে তিনি প্রতিবছর ব্রোকলি চাষ করে আসছেন। ব্রোকলি চাষ সফল হওয়ায় এখন অন্যান্য চাষিরাও ব্রোকলি চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন।

কৃষি অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ব্রোকলি বা সবুজ ফুলকপি আমাদের দেশে একটি নতুন কপি গোত্রের সবজি। কিছুদিন আগেও ব্রোকলি দেশের মানুষের কাছে অপরিচিত সবজি ছিল। বর্তমানে এটি লাভজনক হিসেবে দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এবং সবার কাছে সমাদৃত হচ্ছে। কারণ এই কপি অন্যান্য সবজির চেয়ে বেশি পুষ্টিসমৃদ্ধ।

সূত্র জানায়, ব্রোকলিতে ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম ও লৌহ বিদ্যমান। ব্রোকলি ক্যানসার, স্তন ক্যানসার প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে। শিশুদের রাতকানা ও অন্ধত্ব রোগ থেকে রক্ষা করতে পারে। এ ছাড়া রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কোলেস্টেরল কমাতে সাহায্য করে। গ্যাসট্রিক আলসার প্রতিরোধে দারুণ কার্যকর।

শরিফ মিয়া বলেন, তিনি এবার তার ৪০ শতক জমিতে ব্রোকলির চাষ করেন। কার্তিক মাসের শেষ দিকে ৪ হাজার ব্রোকলির চারা রোপণ করেন। ১ ইঞ্চি জমিও অনাবাদি নেই। ব্রোকলি ছাড়াও তিনি সারা বছর বিভিন্ন জাতের সবজি চাষ করে থাকেন। তার পরিচর্যায় মাত্র আড়াই মাসের মাথায় তিনি ব্রোকলি বিক্রি শুরু করেন।

১৫ দিনে শরিফ মিয়া ৫০ হাজার টাকার ব্রোকলি বিক্রি করেছেন। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে আরও ৫০ হাজার টাকার ব্রোকলি বাজারে বিক্রি করতে পারবেন বলে আশা করছেন তিনি। শ্রীমঙ্গল উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মহিউদ্দিন বলেন আমাদের দেশে শীতকালীন আবহাওয়ায় ব্রোকলি চাষের জন্য খুব উপযোগী। এটি একটি অত্যন্ত পুষ্টিকর সবজি। তা ছাড়া ব্রোকলি স্বাস্থ্যসম্মত সবজি। এটি হালকা সিদ্ধ করে তেল-মসলা ছাড়াও খাওয়া যায়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি