বাঁধা সৃষ্টি করেও প্রকল্প আটকাতে পারেননি এমপি মোকাব্বির: নুনু মিয়া

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ৬ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:১১ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২ মাস আগে

সিলেটের বিশ্বনাথে নিরাপদ পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন প্রকল্পের জন্য ৩৯ কোটি ৬ লাখ ৫৮হাজার টাকা বরাদ্দ পেয়েছে উপজেলা পরিষদ।

রোববার দুপুরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক প্রেসবিফিংয়ের মাধ্যমে উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণকে এমই তথ্য জানালেন চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়া। গত ১ ডিসেম্বর বিশাল এই বরাদ্দ পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি’র প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, তার একক প্রচেষ্টায় সরকার বিভাগ থেকে বিশাল এই বরাদ্দ এনেছি। আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি ছিল আলোকিত বিশ্বনাথ গড়ার। তারই ধারাবাহিকতায় নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে উপজেলাবাসীর উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। আমি সরকারের উর্ধ্বতন মহলের সাথে যোগাযোগ করে উপজেলায় নিরাপদ পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন ব্যবস্থা উন্নয়নের জন্য বিশাল একটি প্রকল্প নিয়ে এসেছি। এমন অনেক উন্নয়নের জন্য আমি বেশ কিছু আবেদন করেছি। যা উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্ব বা ক্ষমতার আওতায় না থাকলেও তবুও বিশ্বনাথের উন্নয়নে আমার সর্বাত্মক প্রচেষ্ঠা অব্যাহত আছে।

উপজেলাবাসীকে সুখবর দিয়ে নুনু মিয়া বলেন, উপজেলার উন্নয়নে আরও ৭০ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। শ্রীঘ্রই এই বরাদ্দ আসছে। যা উপজেলাবাসীর ভাগ্য পরিবর্তনে সুফল আসবে।

তিনি আরো বলেন, ইতিমধ্যে ২৪টি কাঁচা রাস্তার উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোধন হয়েছে। এছাড়া ২৭টি সড়কের সংস্কার কাজের টেন্ডার হয়েছে। পাশাপাশি বিশ্বনাথ সদর ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আরও ১২টি শয্যা বৃদ্ধির কাজ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

বিশাল এই বরাদ্ধ আনতে স্থানীয় এমপি মোকব্বির খানের কোন সহযোগিতা আছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা চেয়ারম্যান বলেন, এই প্রকল্প আনতে এমপি সাহেব বিভিন্নভাবে বাধাঁ সৃষ্টি করেছেন। উপজেলাবাসীর দোয়ায় সকল বাধা উপেক্ষা করে এই প্রকল্প আনতে সক্ষম হয়েছি।

এরআগে রশিদপুর থেকে বিশ্বনাথে তাকে স্বাগত জানিয়ে বিশাল মটর শোভাযাত্রা ও মিছিল দিয়ে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসেন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মিরা।

দৌলতপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আমির আলীর পরিচালনায় প্রেসবিফিংকালে নিজের অভিব্যক্তি পেশ করে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও পৌর প্রশাসক নুসরাত জাহান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি হাজী মজম্মিল আলী, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) ফারুক আহমদ, সহসভাপতি ইরন মিয়া, শাহ আসাদুজ্জামান, সমছু মিয়া, সেলিম আহমদ, পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক আব্দুল জলিল জালাল, উপজেলা কৃষি অফিসার কনক চন্দ্র রায়, সদর ইউপি চেয়ারম্যান ছয়ফুল হক, লামাকাজি ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন ধলা মিয়া, রামপাশা ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলমগীর, অংলকারী ইউপি চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম রুহেল, দশঘর ইউপি চেয়ারম্যান এমাদ উদ্দিন খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আজিজ সুমন, সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক বশির আহমদ, ত্রাণ সম্পাদক হাজী আব্দুল মতিন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান লিলু, সদস্য ফখর উদ্দিন মাস্টার, খলিলুর রহমান মাস্টার, অ্যাডভোকেট তপন দাশ, রফিক হাসান মেম্বার, আনোয়ার হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহবায়ক মহব্বত আলী জাহান, সদস্য জহুর আলী মেম্বার, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আহবায়ক শাহনেওয়াজ চৌধুরী সেলিম, খাজাঞ্চী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শংকর চন্দ্র ধরসহ আওয়ামী ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ