দাবি না মানলে ভার্সিটিতে তালা ঝুলানোর হুমকি শিক্ষার্থীদের

সিলেট ডায়রি ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২১, ৬:২৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৬ দিন আগে

সোমবারের মধ্যে হাইকোর্ট নির্দেশিত জরিমানার টাকা পরিশোধের ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো সিদ্ধান্ত না নিলে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অবরুদ্ধ করে ক্যাম্পাসে তালা লাগানো হবে। রোববার (২১ নভেম্বর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ২১,২২,২৩ এবং ২৪ তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও আইন বিভাগের প্রধান অতিরিক্ত মুনাফা লাভের আশায় প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি করান। এজন্য বার কাউন্সিল শিক্ষার্থীদের ইন্টিমেশন জমা নিচ্ছে না। এই সমস্যা থেকে উত্তরণের জন্য প্রায় ৮ মাস আগে ১৪৮ জন শিক্ষার্থীর পক্ষে হাইকোর্টে দুটি রিট (৫০৯১ ও ৫৩৭০) দাখিল করা হয়। দুটি রিটের প্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে ২৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেন হাইকোর্ট। হাইকোর্ট ৮ সপ্তাহে মোট ছয়টি কিস্তিতে টাকা পরিশোধ করার সময় দেন। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত জরিমানার টাকা পরিশোধের কোনো উদ্যোগ নেয়নি। তাই গত ১৮ নভেম্বর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে যাই স্যারদের সাথে সমস্যা সমাধানের কথা বলার জন্য। সেই সময় আমাদের আইন বিভাগের প্রধান হুমায়ূন কবির স্যার বিশ্ববিদ্যালয়ে না থাকায় আমরা ভাইস চ্যান্সেলর স্যারের সাথে দীর্ঘ সময় কথা বলি। কিন্তু ভাইস চ্যান্সেলর স্যারও আমাদের কোনরকম সমস্যা সমাধানের কথা বলেনি।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা সুনির্দিষ্ট কোন সমাধানের পথ না পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সমস্যা নিরসনের জন্য আগামী সোমবার পর্যন্ত সময় বেধে দেই এবং সেই সঙ্গে আল্টিমেটাম দেই যে সোমবারের মধ্যে যদি কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আশানুরূপ কোন সমস্যা সমাধান না দেন তাহলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয় অবরুদ্ধ করবো ক্যাম্পাসে তালা লাগিয়ে দেব। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে হাজারো স্মৃতি,মায়া,ভালবাসা থাকা সত্বেও আমরা এমন সিদ্ধান্তে যেতে বাধ্য হয়েছি কর্তৃপক্ষের এমন গাফিলতির জন্য।

শিক্ষার্থীরা জানান, গত শনিবার (২০ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের পেইজে কর্তৃপক্ষ এ ব্যপারে একটি পোস্ট করা হয়। সেখানে বলা হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের ভাল চায় এবং আমাদের ভবিষ্যত যেন সুন্দর হয় তারই প্রেক্ষিতে উনারা সমস্যা সমাধানের জন্য চেষ্টা করছেন। আমাদের সমস্যা সমাধানের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টের আদেশের বিপরীতে আপিল করেছে। যদি আপিলে রায় আমাদের পক্ষে আসে তাহলে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন প্রকার জরিমানা দেওয়া লাগবে না।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দেওয়া এমন পোস্টের বিপরীতে শিক্ষার্থীরা প্রশ্ন করেছেন, রায় যদি আমাদের পক্ষে না আসে তাহলে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কি ২৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা দিবে। যেখানে জরিমানার টাকা দেওয়ার শেষ তারিখ হচ্ছে আগামী ২ জানুয়ারি ২০২২। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের আপিলের শুনানি আগামী মাসের ডিসেম্বরের ১২ তারিখ। রায় বিপরীতে চলে গেলে পরবর্তী অল্প সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় অথরিটি ২৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য কি প্রস্তুত আছে?

শিক্ষার্থীরা বলেন, আইন বিভাগের প্রধান হুমায়ুন কবির স্যার ও অন্যান্য অথরিটি যদি লিখিত আকারে আগামী সোমবারের মধ্যে আমাদের যদি আশ্বাস দেন যে-আগামী ১২ তারিখ আপিলের সিদ্ধান্ত আমাদের পক্ষে না আসলে উনারা আমাদের ২৯ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা দেওয়ার জন্য বাধ্য থাকবেন। তাহলে আমরা আমাদের আল্টিমেটাম তুলে নেব। অন্যতায় বিশ্ববিদ্যালয় তালা বন্ধ করার আমাদের কার্যক্রম অবিচল থাকবে।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ