রুখে দাড়াও সাম্প্রদায়িকতা, সিলেটে মিছিল-সমাবেশ

সিলেট ডায়রি ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ১৯ অক্টোবর ২০২১, ৮:৪৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ যখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল ও উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বড় বড় মেগা প্রকল্পগুলো যখন চলমান ও উদ্বোধনের অপেক্ষায়, তখনই একটি চিহ্নিত গোষ্ঠী ও অপশক্তি পরিকল্পিত ও ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সারা দেশে বিশৃঙ্খলা এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার জন্য পাঁয়তারা করছে। সম্মিলিতভাবে এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের অপশক্তিকে রুখে দিতে হবে। সিলেটসহ সারা দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বহমান ঐতিহ্যের ধারা অটুট রাখতে হবে। মহান মুক্তিযুদ্ধে মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সবাই মিলে মিশে দেশকে স্বাধীন করেছি। সুতরাং মুক্তিযুদ্ধে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অবদান অবিস্মরণীয়।

দেশের বিভিন্ন স্থানে চলমান সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার (১৯ অক্টোবর) কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ ঘোষিত ‘সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তির শোভাযাত্রা’ কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ কর্তৃক আয়োজিত সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তির শোভাযাত্রায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তির শোভাযাত্রাটি দুপুর ১২টায় রেজিস্ট্রারি মাঠ থেকে শুরু হয়ে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়।

এ সময় মাসুক উদ্দিন আহমেদ বলেন, কুমিল্লা, নোয়াখালী, রংপুরের পীরগঞ্জসহ সারা দেশের বিভিন্ন জায়গায় দুর্গা প্রতিমা, বাড়ি-ঘর, দোকানপাট ভাঙচুরসহ যে ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটেছে, তা খুবই দুঃখজনক। কোনো প্রকৃত মুসলিম এ ধরনের কাজ করতে পারে না। ধর্মীয় ইস্যুকে সামনে এনে অপশক্তিরা তৎপর হয়ে উঠছে। তাই আমাদেরকে সতর্ক থাকতে হবে। পুলিশ প্রশাসন ইতোমধ্যে অনেক অপরাধীকে গ্রেপ্তার করেছে এবং অবশ্যই তাদের বিচার হবে।

তিনি বলেন, গতকাল আমরা সিলেট জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সকল ধর্মীয় সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় আলোচনা করেছি। নেতৃবৃন্দ একমত পোষণ করেছেন, কোনোভাবেই অপশক্তিকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের সুযোগ দেওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে সবাইকে সর্বদা সজাগ থাকতে হবে। কোনো ধরনের উস্কানিমূলক বক্তব্য প্রদান থেকে বিরত থাকতে হবে। সকল ধর্মীয় স্থাপনা আমাদেরকে রক্ষা করতে হবে। মনে রাখতে হবে, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় সাম্প্রদায়িক অপশক্তির কোনো স্থান নেই। আবহমান কাল থেকে এই বাংলায় আমরা মিলে-মিশে ছিলাম, আছি এবং ভবিষ্যতেও থাকব।

সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. জাকির হোসেনের পরিচালনায় সম্প্রীতি সমাবেশ ও শান্তির শোভাযাত্রায় বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ সুজাত আলী রফিক ও যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতিবৃন্দ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, বিজিত চৌধুরী, নুরুল ইসলাম পুতুল, অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার ভট্টাচার্য্য, অ্যাডভোকেট শাহ মোশাহিদ আলী, মো. সানাওয়র, জগদীশ চন্দ্র দাস, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এ টি এম হাসান জেবুল, কবির উদ্দিন, বিধান কুমার সাহা, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্যবৃন্দ, অ্যাডভোকেট মাফুজুর রহমান, সাইফুল আলম রুহেল, তপন মিত্র, খন্দকার মহসিন কামরান, শমসের জামাল, নজমুল ইসলাম এহিয়া, আব্দুর রহমান জামিল, বেগম শামসুর নাহার মিনু, মোহাম্মদ জুবের খান, বুরহান উদ্দিন, মো. সাইফুর রহমান খোকন, সেলিম আহমদ সেলিম, ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ, আজিজুল হক মঞ্জু, শামসুল আলম সেলিম, রজত কান্তি গুপ্ত, ডা. সাকের আহমেদ শাহীন, ডা. মোহাম্মদ হোসেন রবিন, অ্যাডভোকেট সৈয়দ শামীম আহমদ, ডা. আরমান আহমদ শিপলু, মতিউর রহমান মতি, অমিতাভ চক্রবর্ত্তী রনি, সোয়েব আহমদ, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্যবৃন্দ, দিবাকর ধর রাম, আব্দুল আহাদ চৌধুরী মিরন, অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর, মো. আব্দুল আজিম জুনেল, সান্তনু দত্ত সন্তু, মুক্তার খান, অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ জাহিদ সারোয়ার সবুজ, এমরুল হাসান, সুদীপ দেব, সাব্বির খান, সৈয়দ কামাল, অ্যাডভোকেট বদরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, অ্যাডভোকেট মনসুর রশিদ, এ আর সেলিম, সাইফুল আলম স্বপন, ওয়াহিদুর রহমান ওয়াহিদ, তৌফিক বক্স লিপন, জামাল আহমদ চৌধুরী, খলিল আহমদ, আবুল মহসিন চৌধুরী মাসুদ, মহসিন চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার আতিকুর রহমান সুহেদ, শিপা বেগম শুপা, জুমাদিন আহমেদ, রকিবুল ইসলাম ঝলক, ইলিয়াছ আহমেদ জুয়েল, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডা. নাজরা চৌধুরী, খোকন কুমার দত্ত, আব্দুল মালিক সুজন, এনাম উদ্দিন, কানাই দত্ত, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আফসার আজিজ, সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দীন কয়েস, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক দেবাংশ দাস মিঠু, জেলা তাঁতী লীগের সদস্য সচিব সুজন দেবনাথ, মহানগর তাঁতী লীগের সভাপতি নোমান আহমদ, সাধারণ সম্পাদক শেখ আবুল হাসনাত বুলবুল, ২৭টি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ, মুহিবুর রহমান সাবু, মো. ছিদ্দেক আলী, সালাউদ্দিন বক্স সালাই, ফখরুল হাসান, দেলোওয়ার হোসেন রাজা, মো. নিজাম উদ্দিন ইরান, তাজ উদ্দিন লিটন, জায়েদ আহমেদ খাঁন সায়েক, নজরুল ইসলাম নজু, অ্যাডভোকেট মোস্তফা দিলোয়ার আজহার, মো. বদরুল ইসলাম বদরু, মানিক মিয়া, চন্দন রায়, মাহবুব খান মাসুম, বদরুল হোসেন লিটন, ফজলে রাব্বি মাসুম, শেখ সোহেল আহমদ কবির, জাবেদ আহমদ, সেলিম আহমদ সেলিম, এন এম ইসলাম, মো. ছয়েফ খানসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ