শ্রীমঙ্গলে সাতগাঁও রঘুনাথপুরে কুমারী পূজা

এস কে দাশ সুমন, শ্রীমঙ্গল;
  • প্রকাশিত: ১৩ অক্টোবর ২০২১, ৯:০৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ সপ্তাহ আগে

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে শারদীয় দুর্গাপূজার মহাঅষ্টমীতে প্রতিবছরের ন্যায় এবারো অনুষ্ঠিত হয়েছে কুমারী পূজা। সকাল থেকে কুমারী পূজা দেখতে বিভিন্ন জায়গা থেকে আসা দর্শনার্থীরা ভীড় করেন এখানে।

বুধবার সকালে উপজেলার সাতগাঁও রঘুনাথপুর শ্রী শ্রী আনন্দময়ী কালীবাড়িতে এই কুমারী পূজা হয়।

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে কুমারী শিশুকে নতুন কাপড় পড়িয়ে দেবীর সাজে সজ্জিত করে কুমারী মন্দিরে বসানো হয়। সেখানে দেবীর পূজা শুরু করেন পুরহিতরা। পূজা শেষে ভক্তবৃন্দের জন্য দেবীকে বসিয়ে রাখা হয়।

শ্রী শ্রী আনন্দময়ী কালীবাড়ি দুর্গা পূজা উদযাপন পরিষদের সহ সাধারণ সম্পাদক রজত চক্রবর্তী বলেন, এবার দেবী দুর্গার কালসন্ধর্ভা রূপে পূজা করা হয় ৯ বছরের মেয়ে পূজা চক্রবর্তীকে।পূজা চক্রবর্তী সুনামগঞ্জ জেলার পাগলা এলাকার বিষ্ণু চক্রবর্তীর মেয়ে। সে একটি স্কুলে ৩য় শ্রেনীতে পড়ে।
তিনি আরো বলেন, শাস্ত্রে আছে ভগবান জীবাত্মা রূপে সব জীবের মধ্যে বিরাজমান। কুমারী পূজাটি স্বামী বিবেকানন্দ প্রচলন করেন। নারীকে দেবী জ্ঞানে সেবা করা, নারীদের শ্রদ্ধা করা, যাতে তাদের শ্রদ্ধার আসনে রাখা হয়, সে জন্য কুমারী নারীর পূজা করা।

সনাতন সেবা সংস্থা বৈদিক এর মুখপাত্র অপিক দেব বলেন, সনাতন ধর্মে নারীদের দেবী রুপে সম্মান জানিয়ে পূজা করে আসছে। তারই একটি অনুসঙ্গ হচ্ছে শারদীয় দুর্গা পূজার এই কুমারী পূজা। কুমারী পূজার মাধ্যমে আমরা সবাইকে একটি বার্তা পৌছে দিতে চাই যে, নারী কখনোই পিছনে থাকতে পারে না। নারীরা দেবী শক্তি, নারী অসুর বিনাশী, নারীরা জাগলেই পুরো বিশ্ব জাগবে এবং সমগ্র বিশ্বের শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, মুলত ১ বছর থেকে ১৬ বছর বয়সের কন্যা শিশুকে দেবী রুপে পূজা করা হয়ে থাকে। এবং প্রতিবছরই দেবীর আলাদা আলাদা নাম নিয়ে এই পূজা করা হয়। সনাতন ধর্মালম্বীরা বিশ্বাস করে কুমারী পূজার মাধ্যমে দেবী দুর্গার কাছে আরাধনা করলে দেবী সেটা পুরন করেন।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ