বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অপবাদ বরদাস্ত করা হবে না : এলজিআরডি মন্ত্রী

এম এম এ রেজা পহেল,ধর্মপাশা;
  • প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৯:১১ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর থেকে খাদ্য ঘাটতি পূরণ, যোগাযোগ ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থার উন্নতি, কর্মসংস্থান সৃষ্টিসহ সারা বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্য উন্নতি করে দেশ পরিচালনা করে যাচ্ছেন। তাই বাংলাদেশের মানুষের ব্যাপক উন্নতি সাধিত হয়েছে। এখন হতদরিদ্র মানুষের সংখ্যা কমেছে।’

শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সুনামগঞ্জের সদ্য ঘোষিত মধ্যনগর উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্স নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন উপলক্ষে আয়োজিত গণসংবর্ধনা ও সুধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে কেউ কোনও প্রকার অপবাদ দেওয়ার চেষ্টা করলে তা কোনোভাবে বরদাস্ত করা হবে না উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘যারা এই সমস্ত কথা বলার চেষ্টা করবে তাদেরকে প্রতিহত করা হবে। বঙ্গবন্ধুকে নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর দীর্ঘ ১২ বছর পর্যন্ত আওয়ামী লীগ এবং তার নেতৃবৃন্দ ছিলেন দিশেহারা। তখন বাংলার মানুষের ভাগ্যের উন্নতি হয়নি। খাদ্য ঘাটতি, যোগাযোগ ব্যবস্থার অনুন্নয়ন, শিক্ষা স্বাস্থ্যসহ কোন বিষয়েই উন্নতি সাধন হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর সাথে কারও অংশদারিত্বের সুযোগ নেই। তিনি এদেশের মানুষকে সংগঠিত করেছেন, ঐক্যবদ্ধ করেছেন, লড়াই সংগ্রাম ও আন্দোলনের জন্য উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি লড়াই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা এনেছেন এবং তিনি স্বাধীনতার ঘোষক। বঙ্গবন্ধু একমাত্র ঘোষক, বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা এবং বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা। বঙ্গবন্ধুর সমকক্ষ কেউ নেই।’

মো. তাজুল ইসলাম আরও বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু কন্যা হাওরাঞ্চল পরিদর্শন করে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ করেছেন। এই প্রকল্পের কারণে হাওরাঞ্চলে অনেক অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। আর যে সমস্ত সমস্যা রয়েছে তাও সমাধান করা হবে। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতির জন্য এখানে ৬০০ কিলোমিটার রাস্তা পাকাকরণ এবং ৬৭টি সেতু নির্মাণ করা হয়েছে। হাওর থেকে ধান সহজে বহন করার জন্য হাওরের মধ্য দিয়ে সাবমারসিবল রাস্তা নির্মাণের বিষয়টি বিবেচনাধীন রয়েছে বলে জানান এলজিআরডি মন্ত্রী।’

মধ্যনগর বাজারে উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদ আয়োজিত গণসংর্ধনা ও সুধী সমাবেশে সংগঠনের সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ তালুকদারের সভাপতিত্বে ও মধ্যনগর থানা যুবলীগের সভাপতি মোস্তাক আহমেদের পরিচালনায় বক্তব্য দেন, পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি, স্থানীয় এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নূরুল হুদা মুকুট, রেজাউল করিম শামীম, সুনামগঞ্জ পৌর মেয়র নাদের বখত, ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমেদ বিলকিস, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন রোকন, মধ্যনগর থানা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মোবারক হোসেন তালুকদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলম ফারুকী, মধ্যনগর উপজেলা বাস্তবায়ন পরিষদের সহ-সভাপতি কুতুব উদ্দিন তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক অমরেশ রায় চৌধুরী, মধ্যনগর থানা যুবলীগের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান রোকন, সাধারণ সম্পাদক বিদ্যুৎ কান্তি সরকার প্রমুখ।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ