আজমিরীগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীর বিয়ে বন্ধ করলো প্রশাসন

আজমিরীগঞ্জ প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৭:৪৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

হবিগঞ্জের আজমিরীগঞ্জে সপ্তম শ্রেণীর এক ছাত্রীর জন্মনিবন্ধন জালিয়াতি করে বিয়ের আয়োজন করলেও প্রশাসনের বাঁধায় তা পণ্ড হয়ে যায়।

এসময় কনের বড় ভাইকে ৫ হাজার জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সাথে কনেকে ১৮ বছর বয়স পর্যন্ত বিয়ে না দেয়ার শর্তে কনের পরিবারের কাছ থেকে মুচলেকা নিয়েছে প্রশাসন।

তবে সপ্তম শ্রেণীতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীর গায়ে হলুদ গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) ওই ছাত্রীর বিয়ে অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল। তবে প্রশাসনের উপস্থিতিতে বিয়ে বন্ধ হয়ে যায়।

বিয়ে বন্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম। তিনি জানান, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সদরের মিয়াধন মিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর সনদ জালিয়াতি করে বয়স বাড়ানো হয়েছে। মেয়েটির বয়স ১৩ বছর ৬ মাস ২১ দিন। জন্ম তারিখ উল্লেখ আছে ২০১৬ সালের ১৭ নভেম্বর ইউনিয়ন পরিষদের দেওয়া জন্ম নিবন্ধনেও। কিন্তু গত ৬ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কদ্দুছ মিয়া ও সচিব প্রণতিশ চন্দ্র দাসের স্বাক্ষরে মেয়েটির নামে আরেকটি জন্ম নিবন্ধন করা হয়েছে। এতে জন্ম তারিখ দেখানো হয়েছে ২০০৩ সনের ১০ ফেব্রুয়ারি। সেই অনুযায়ী তার বয়স এখন ১৮ বছর ৭ মাস।

তিনি আরও জানান, শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) আজমিরীগঞ্জ উপজেলা সদরের মিয়াধন মিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির এক ছাত্রীর সনদ জালিয়াতি করে বিয়ের আয়োজন করে অভিভাবক। পরে কনের ভাইকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

একি জন্মসনদ জালিয়াতির বিষয়টি নিয়ে জানতে আজমিরীগঞ্জ সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আব্দুল কদ্দুছ মিয়ার সাথে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ