ভ্যাকসিন নিলে ১০ লাখ ডলার পুরস্কার!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ;
  • প্রকাশিত: ১৩ মে ২০২১, ৯:৫০ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের জন্য অধীর আগ্রহে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রে এর চাহিদা কিছুটা কম দেখা যাচ্ছে। তাই মানুষকে ভ্যাকসিন নিতে উৎসাহিত করতে ওহাইও অঙ্গরাজ্যের সরকার বের করেছে এক অভিনব পন্থা।

তারা পাঁচ সপ্তাহের জন্য একটি লটারির আয়োজন করেছে যেখানে প্রত্যেক বিজয়ী ১০ লাখ ডলার করে পুরস্কার পাবেন।

ওহাইও রাজ্যের গভর্নর মাইক ডিওয়াইন বলেছেন, ভ্যাকসিন নিয়েছেন এমন প্রাপ্তবয়স্করাই এই লটারিতে যোগদান করতে পারবেন।

তিনি বলেন, পাঁচটি লটারির প্রথমটির বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে ২৬ মে।
কেন্দ্রীয় সরকার করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবেলায় যে অর্থ বরাদ্দ করেছে সেখান থেকে এই অর্থ ব্যয় করা হবে বলে তিনি জানান।

বিশ্বে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক প্রাপ্তবয়স্ককে ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট জনসংখ্যার ৫৮.৭০% মানুষ টিকা নিয়েছেন।

কিন্তু আক্রান্ত সংখ্যার হিসেবে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে।

প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আগামী ৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবসের মধ্যে ৭০% প্রাপ্তবয়স্ককে ভ্যাকসিনের আওতায় আনার ঘোষণা দিয়েছেন।

কিন্তু গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সারা দেশে টিকা নিতে আসা লোকের সংখ্যা কমছে। ভ্যাকসিন নিয়ে মানুষের দ্বিধার জন্যই এমনটা ঘটছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা।

এই পটভূমিতে মানুষকে টিকা নিতে উৎসাহিত করার লক্ষ্যে বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যের সরকার নগদ অর্থ ছাড়াও বিয়ার, ডোনাট, নানা ধরনের খেলা দেখার জন্য ফ্রি টিকেট প্রভৃতি দেয়ার ব্যবস্থা করেছে।

ডিওয়াইন টুইটারে এক পোস্টে লিখেছেন, ‘আমি জানি অনেকেই হয়তো বলবেন, ডিওয়াইন, তোমার মাথা খারাপ হয়েছে! ১০ লক্ষ ডলার লটারি পুরষ্কার দেয়া হবে অর্থের অপচয়।’

তিনি আরও লিখেছেন, ‘কিন্তু এই মহামারির সময় আসল ক্ষতি হলো ভ্যাকসিন মজুত থাকার পরেও কেউ যদি সেটা না নেয় এবং এজন্য যদি কোন প্রাণহানি ঘটে।’

ওহাইও অঙ্গরাজ্য একই সঙ্গে ১৮ বছরের কম বয়সীদের জন্যও আলাদা লটারির ব্যবস্থা করেছে। তবে তারা ১০ লাখ ডলার নয়, তারা পাবেন ওহাইওর বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে চার বছর বিনা পয়সায় পড়াশোনা করার বৃত্তি।

গভর্নর ডিওয়াইন জানান, রাজ্যে ভোটার তালিকা থেকে ভ্যাকসিন নেয়া লোকের নাম নির্বাচন করা হবে।

গত সপ্তাহে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেছেন, ভ্যাকসিন সম্পর্কে যারা ‘বিভ্রান্ত’, সরকার তাদের ভুল ভেঙে দেয়ার চেষ্টা করছে। তার পরিকল্পনায় ১২ বছর বয়সীদেরও টিকার দেয়ার প্রস্তাব রয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ