শাল্লার ঘটনায় আ.লীগ নেতাসহ গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক ;
  • প্রকাশিত: ১০ মে ২০২১, ১১:০৬ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ মাস আগে

সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামে হিন্দু পল্লীতে হেফাজত নেতা মাওলানা মামুনুল হকের সমর্থকদের হামলা, লুটপাট ও ভাঙচুরের ঘটনায় ভিডিও ফুটেজ দেখে আরও ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- দিরাই উপজেলার সরমঙ্গল ইউনিয়নের ধনপুর গ্রামের আব্দুল রশিদের ছেলে হান্নান মিয়া (৫০) ও পার্শ্ববর্তী চন্ডিপুর গ্রামের সোয়েব মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম (২২)। সোমবার (১০ মে) বিকেলে জেলা ডিবি পুলিশের একটি দল তাদের নিজ গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করে।

জানা যায়, গ্রেপ্তারকৃত হান্নান মিয়া দিরাইয়ের সরমঙ্গল ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও একই ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য। এর আগে মামলার প্রধান আসামি যুবলীগ নেতা ইউপি সদস্য শহিদুল ইসলাম স্বাধীন মিয়াসহ মোট ৫৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ৯ জন ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

সুনামগঞ্জ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল বাহার জানান, নোয়াগাঁও গ্রামের ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখে দুইজনকে শনাক্ত করে বিকেলে তাদেরকে নিজ গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আগামীকাল মঙ্গলবার তাদেরকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।

উল্লেখ্য, হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতা মাওলানা মামুনুল হকের সমর্থকরা গত ১৭ মার্চ নোয়াগাঁও গ্রামের ৮৮টি বাড়িতে হামলা, লুটপাট ও ভাঙচুর চালায়। এ সময় গ্রামের ৫টি মন্দির ভাঙচুর করা হয়। নোয়াগাঁও গ্রামের ঝুমন দাস আপন নামের এক তরুণের ফেসবুক আইডি থেকে মাওলানা মামনুল হককে ‘কটাক্ষ’ করে দেওয়া স্ট্যাটাসের প্রতিক্রিয়ায় ওই তাণ্ডব চালানো হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ