সিলেটে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত, কেউ মানছে না লকডাউন

নিজস্ব প্রতিবেদক ;
  • প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২১, ১০:০৩ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ সপ্তাহ আগে

করোনাভাইরাসে সংক্রমণ রোধে দেশে ৭ দিনের লকডাউন চলছে। আজ বুধবার (৭ এপ্রিল) চলমান লকডাউনের তৃতীয় দিন ছিল। তবে লকডাউনের প্রথম দুদিনের তুলনায় আজ আরও বেশি গা ছাড়া ভাব ছিল মানুষের মাঝে। লকডাউন মানা তো দূরের কথা, স্বাস্থ্যবিধিই মানছেন না কেউ। পুলিশ কিংবা ম্যাজিস্ট্রেট দেখলে মুখে মাস্ক তুলছেন। আর চলে গেলেই মাস্ক চলে যাচ্ছে থুতনিতে কিংবা পকেটে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, অন্যান্য স্বাভাবিক দিনের মতোই মানুষ রাস্তায় বের হয়েছেন। সরকারের নির্দেশনা মতে আজ নগরে গণপরিবহণও ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে নগরে গণপরিবহণ বাড়লেও মানুষের মধ্যে সচেতনতা ছিল না। এক্ষেত্রে গণপরিবহণগুলোও যেন উদাসীন। কোন গণপরিবহণেই হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা হাত ধোয়ার ব্যবস্থা ছিল না। ছিল না স্বাস্থ্যবিধিও। তবে ৬০ শতাংশ ভাড়া নিয়েছে পরিবহণগুলো। এতে সাধারণ মানুষ আর পরিবহণ শ্রমিকদের মধ্যে ঝগড়াও হয়েছে ছোট-খাটো।এদিকে সরকারের দেয়া নির্দেশনা অমান্য করে পরিবহণ শ্রমিক নেতাদের পূর্ব ঘোষণা মতে সিলেটের বিভিন্ন জেলায় বাস-মিনিবাস চালানো শুরু করেছিলেন। তবে চলাচলের প্রায় ৫ ঘণ্টা পরে প্রশাসনের অনুরোধে ফের বন্ধ করা বাস চলাচল।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত। তিনি জানিয়েছেন, বুধবার ভোর থেকে সিলেটের আঞ্চলিক সড়কে বাস চলাচল শুরু হলে সকাল ১১ টার দিকে পুলিশ প্রশাসনের অনুরোধের ভিত্তিতে তা বন্ধ করা হয়।

এদিকে সরকারের নির্দেশনায় ফার্মেসি, নিত্যপণ্যসহ শর্ত সাপেক্ষে সরকার নির্দেশিত কিছু ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার কথা থাকলেও অনেকেই তা মানছেন না। নগরীর বিভিন্ন এলাকায় খোলা ছিল দোকানপাট। বিশেষ করে নগরের প্রধান সড়কগুলো বাদে সব এলাকায় বেশিরভাগ দোকানপাট খোলা ছিল। এসব দোকানে বসে মানুষ আড্ডা দিচ্ছেন, অহেতুক ঘুরাঘুরি করছেন। তবে এসব ‘অহেতুক ঘুরে বেড়ানো’ মানুষগুলো মুখে ছিল না মাস্ক। আর যাদের মাস্ক ছিল তাও থুতনির বেশি উঠেনি।তবে প্রথম দুদিনের মতো তৃতীয় দিনেও লকডাউন কার্যকর করতে মাঠে ছিল প্রশাসন। অভিযান, মামলা, জরিমানা করলেও পরিস্থিতি খুব বেশি পালটায় নি। বরং প্রথম দিনের তুলনায় তৃতীয় দিন মানুষের ভিড় ছিল বেশি।

তবে কোভিড-১৯ সেলের দায়িত্বে থাকা সিলেট জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার (সাধারণ শাখা, মিডিয়া সেল) শামমা লাবিবা অর্ণব বলছেন, লকডাউন ঠিকমতো বাস্তবায়ন করতে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নিয়মিত কাজ করছে। একই সাথে জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য সচেতন করা হচ্ছে। আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করা হচ্ছে। এসময় তিনি বিনা প্রয়োজনে কাউকে ঘর থেকে বের না হতে বলে, সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য অনুরোধ করেন।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ