টার্গেট সিলেট – ৩

জিকরুল ইসলাম;
  • প্রকাশিত: ২৫ মার্চ ২০২১, ৯:৩৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৩ সপ্তাহ আগে

গত ১৫ মার্চ সংসদ সচিবালয় থেকে থেকে শূন্য ঘোষণা করা হয় সিলেট-৩ সংসদীয় আসন। ফেঞ্চুগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জের অভিভাবক মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েসের আকস্মিক মৃত্যুর কারণেই সৃষ্টি হয়েছে এই শূন্যতার। ১১ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন সংসদ সদস্য কয়েস। সংবিধান অনুযায়ী, শূন্য আসনে উপনির্বাচন সম্পন্ন করতে হয় ৯০ দিনের মধ্যে। নির্বাচন কমিশন (ইসি) আসন শূন্য ঘোষণা করলে ভোটের প্রস্তুতি শুরু হবে।

আসন শূন্যের প্রজ্ঞাপন জারি না হলেও, তিন লক্ষাধিক ভোটার নিয়ে গঠিত সিলেট-৩ আসনের (ফেঞ্চুগঞ্জ-দক্ষিণ সুরমা-বালাগঞ্জ) উপনির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার জন্য ইতিমধ্যে দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। বিভিন্ন দলের স্থানীয় থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতারাও দলীয় মনোনয়নের জন্য লবিং তদবির শুরু করে দিয়েছেন। প্রার্থিতা নিয়ে শুরু হয়েছে নানা জল্পনা কল্পনা। সৃষ্টি হয়েছে জটিল সমীকরণের। আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টিসহ অন্য রাজনৈতিক দলগুলোও এই আসনকে নিজেদের দখলে নিতে চাইছে। সব মিলিয়ে প্রাথমিক লড়াইয়ে নেমেছেন দুই ডজনেরও অধিক মুখ। তাদের সবার টার্গেট এখন সংসদীয় আসন সিলেট-৩। এর জন্য সবার আগেই প্রয়োজন দলের সমর্থন। সেই সমর্থন বাগিয়ে নিতে ছোটাছুটি চলছে ঢাকা-সিলেটে। এমনকি সাত সমুদ্র তেরো নদীর ওপারে বিলেত থেকেও চলছে লবিং। জানা গেছে, সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে লড়ার জন্য অন্তত ১৬ জন নেতার নাম শোনা গেছে। এর মধ্যে কর্মীদের মুখে কিছু নেতার নাম থাকলেও বাকিরা আওয়াজ তুলছেন নিজেরা এবং নিজেদের ঘনিষ্ঠজনদের মাধ্যমে।

এবার আওয়ামী লীগ থেকে সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচনে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন ডা. এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল। তিনি স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও চিকিৎসকদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) কেন্দ্রীয় মহাসচিব। তিনি সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক এবং স্বাচিপ সিলেট শাখার প্রতিষ্ঠাকালীন সাধারণ সম্পাদক ও পরবর্তীতে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকায় বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের দুই আমলে সরকারি চাকরিতে নিগৃহীত হন এহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল। গত বিএমএ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অনুসারী স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) প্যানেলের হয়ে মহাসচিব পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ডা. দুলাল। ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ করেন এই চিকিৎসক।

অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজও এই আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী বলে জানা গেছে। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক তিনবারের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের প্রথম সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট জেলা জজ কোর্টের সাবেক পিপি। ছিলেন বৃহত্তর সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিও। ছাত্র জমানা থেকে রাজনৈতিক কারণে একাধিকবার মামলা, হামলা এবং কারাবরণ করেন তিনি। গত নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিলেও মনোনয়ন বঞ্চিত থাকতে হয় মিসবাহ সিরাজকে। সিলেট-১ ও সিলেট-৩ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহও করেছিলেন তিনি। তবে সিলেট-১ আসনে ড. এ কে আব্দুল মোমেন ও সিলেট-৩ আসনে মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েসকে মনোনয়ন দেয় আওয়ামী লীগ। প্রয়াত মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর স্ত্রী ফারজানা সামাদ চৌধুরীর নামও আসছে দলীয় নেতাকর্মীর মুখ থেকে।

এই আসন থেকে অন্য সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও দক্ষিণ সুরমা উপজেলা চেয়ারম্যান আবু জাহিদ, বালাগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর, সিলেট জেলা বারের পিপি ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি অ্যাডভোকেট নিজাম উদ্দিন, কোষাধ্যক্ষ শমসের জামাল, সাবেক সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল, বাংলাদেশ অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব মন্টু, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বাছিত টুটুল, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও ফেঞ্চুগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের সাবেক ভিপি সাংবাদিক শাহ মুজিবুর রহমান জকন, সিলেট চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র সহ- সভাপতি ব্যবসায়ী তাহমিন আহমদ, সিলেট জেলা ও অতিরিক্ত যুগ্ম ও দায়রা জেলা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ বদরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর। দলীয় নেতাদের মুখে শুনা যাচ্ছে সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সিলেট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরীর নামও।

সিলেট-৩ আসনে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন চান প্রবাসীরাও। প্রয়াত মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর ছোট ভাই চ্যানেল এস’র চেয়ারম্যান ও যুক্তরাজ্য প্রবাসী বাঙালী কমিউনিটি নেতা আহমদ উস সামাদ চৌধুরী (জেপি), যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক ও সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিব, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আ স ম মিসবাহ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ নেতা সেলিম আহমদ সেলিম, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আওয়ামী লীগ নেতা কফিল উদ্দিন চৌধুরী, ফেঞ্চুগঞ্জের যুক্তরাজ্য প্রবাসী স্যার এনামুল ইসলাম ও যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা দেওয়ান গৌছ সুলতান।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সিলেট-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী, কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম, কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সহ সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম চৌধুরী ও যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক।

মহাজোটের শরিক দল জাতীয় পার্টি তাদের দুর্গ হিসেবে খ্যাত সিলেট-৩ আসনে এবার নিজেদের প্রার্থী চাইছে। দলটির কেন্দ্রীয় সদস্য ও ফিজা এন্ড কোং প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলাম বাবুল, প্রেসিডিয়াম সদস্য আতিকুর রহমান আতিক ও সিলেট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া, সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব উসমান আলীর নাম এখন জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীদের মুখে মুখে।

উল্লেখ্য, সিলেট-৩ আসনটি ১৯৭৩ সালে অনুষ্ঠিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সাধারণ নির্বাচনের সময় গঠিত হয়েছিল। সিলেট জেলার দক্ষিণ সুরমা উপজেলা, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ও বালাগঞ্জ উপজেলার দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন, পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়ন ও পশ্চিম গৌরীপুর ইউনিয়ন এই আসনের অন্তর্ভূক্ত ছিলো। সর্বশেষ, ২০১৮ সালের সাধারণ নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশন আবারও সীমানা নির্ধারন করে, যার ফলে সম্পূর্ণ বালাগঞ্জ উপজেলাকে সিলেট-৩ আসনের আওতাভুক্ত করা হয়। এই আসন থেকে ১৯৭৩ সালে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আব্দুর রইছ। পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালে বিএনপির দেওয়ান সামসুল আবেদিন, ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, ১৯৮৮ ও ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের জুন মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে জাতীয় পার্টির আবদুল মুকিত খান, ১৯৯৬ সালের ফেব্রুয়ারি ও ২০০১ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিএনপির শফি আহমেদ চৌধুরী, ২০০৮, ২০১৪ ও ২০১৮ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টানা তিনবার আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী নির্বাচিত হন।

 

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ