জমি দখল করে বিধবাকে সরকারি কর্মচারীর মারধর

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ৫ দিন আগে

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সরকারি এক ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীর বিরুদ্ধে এক বিধবা নারীর জমি দখল ও মারধর করে মাথায় আঘাতের অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে মাধবপুর ইউপির নোয়াগাঁও গ্রামের মৃত ফরিদ মিয়ার স্ত্রী কুলছুম বিবি এ অভিযোগ করেন। এসময় তার মেয়ে শাবানা আক্তার ও ছেলে রাসেদ আহমদও উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত অভিযোগ করে বিধবা কুলছুম বিবি বলেন, কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারী একই গ্রামের মৃত মিয়াধন মিয়ার ছেলে আপ্তাব উদ্দিন ও তার সহযোগীরা মিলে গত ১৭ ফেব্রুয়ারী গভীর রাতে কুলছুমের জমির উপর ঘর নির্মানের মাধ্যমে দখলে নেয়। খবর পেয়ে তিনি ও তার ছেলে বাধা প্রদান করলে আপ্তাব উদ্দিন ধারালো দা দিয়ে কুলছুমের মাথায় আঘাত করে। তখন তিনি গুরুত্বর আহত হলে খবর পেয়ে স্বজনরা প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখান থেকে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। বর্তমানে মাথায় আঘাত নিয়ে অসুস্থ অবস্থায় আছেন। এ সুযোগে আপ্তাব উদ্দিন তার জমিতে ঘর তৈরির কাজও চালিয়ে যাচ্ছে।

কুলছুম বিবি আরও বলেন, আপ্তাব মিয়া ২০১৫ সালে ৪৬/১৫ স্বত্ব মামলা মৌলভীবাজার জজ আদালতে তার স্বামী ফরিদ মিয়ার নামে মামলা দায়ের করে। মামলা চলাকালীন তার স্বামী ফরিদ মিয়া মারা গেলে পরবর্তীতে দীর্ঘদিন মামলা চলার পর কুলছুমের পক্ষেই রায় হয়। রায় হওয়ার পর আবার আপ্তাব মৌলভীবাজার জেলা জজ আদালতে আপিল করে। ভূমি দখলের বিষয়ে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপারের কাছে আপ্তাব উদ্দিনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করলেও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

তবে অবৈধভাবে বিধবা নারীর জমি দখল ও মারপিটের অভিযোগ অস্বীকার করে আপ্তাব মিয়া বলেন, ‘আমি ক্রয়সূত্রে এ জমির মালিক। আমি আমার জমিতে গৃহনির্মাণ করলে কারও কোন অভিযোগ থাকার কথা নয়।’

এ বিষয়ে কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক বলেন, ‘এ বিষয়টি সর্ম্পকে তিনি অবগত নন। তবে সরকারী কর্মচারী হয়ে প্রভাব খাটিয়ে কেউ এ রকম অপকর্ম করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ