পুলিশের অভিযানে ফেন্সিডিল উদ্ধার, প্রাইভেটকারসহ আটক ২

নিজস্ব প্রতিবেদক ;
  • প্রকাশিত: ১৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১১:৩৫ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৪ মাস আগে

শহরতলীর সুরমা গেইট এলাকা থেকে শতাধিক ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় প্রাইভেটকারসহ ২জনকে আটক করেছে শাহপরাণ (রহ.) থানা পুলিশ।
শাহপরাণ (রহ.) মাজারে অবস্থিত তদন্ত কেন্দ্রের এসআই (নিরস্ত্র) সরোয়ার হোসেন ভূইঞা সঙ্গীয় ফোর্স সহ এই ফেন্সিডিল উদ্ধার ও প্রাইভেট কার আটক করেন।

পুলিশের এক বিবৃতিতে জানা হয়, রোববার দিবাগত রাত ১১টার দিকে শাহপরাণ (রহ.) মাজার তদন্ত কেন্দ্রের অফিসার ফোর্সসহ রাত্রিকালীন সিয়েরা ডিউটি করছিলেন। এসময় শাহপরাণ (রহঃ) থানাধীন সুরমা গেইট বাইপাস পয়েন্টে চেকপোস্টে সন্দেহবশত ১টি সাদা রংয়ের প্রাইভেটকারকে সিগন্যাল দেয়া হয়। সিগন্যাল অমান্য করে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে গাড়িটি। অফিসার ও ফোর্সের সক্রিয়তায় প্রাইভেটকারটি আটক করা হয়।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে, উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে প্রাইভেটকারের ভিতর থাকা মাসুম আহমদ (৩০) ও তাজুল ইসলাম তাজ (২০) কে তাৎক্ষনিক জিজ্ঞাসাবাদ ও গাড়ী তল্লাসী করে ১১৯ বোতল ফেন্সিডিল পাওয়া যায়। যার ওজন প্রায় ১১.৯ লিটার এবং বাজার মূল্য প্রায় ১,১৯,০০০/- (এক লক্ষ উনিশ হাজার) টাকা।

তাদের সাথে থাকা সাদা রংয়ের COROLLA প্রাইভেটকার, যার রেজি. নং-ঢাকা মেট্রো-গ-১৩-২৭২৩, যার মূল্য অনুমান ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা জব্দ করা হয়।
পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, জকিগঞ্জ সীমান্ত থেকে উক্ত মাদক সিলেট শহরে বিক্রির উদ্দেশ্যে নিয়ে আসছিলো। তাদের বিরুদ্ধে শাহপরাণ (রহ:) থানায় ধারা-২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনের ৩৬(১) এর টেবিল ১৩(গ)/৩৮ একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-০৯, তারিখ-১৪/১২/২০১৯ইং।

মামলার আসামী করা প্রথম আসামী হচ্ছেন জকিগঞ্জ থানার ছয়ঘরী সোনাসার গ্রামের মৃত মাওলানা মোকলেসুর রহমান ও মৃত ছালেহা বেগমের ছেলে মাসুম আহমদ (৩০)। তিনি বর্তমানে নগরীর তালতলার হোটেল ইস্ট এন্ড এর গাড়ি চালক হিসেবে রয়েছে।
অন্যজন জকিগঞ্জ থানার উত্তরকুল গ্রামের গৌস উদ্দিন মাসুক (মাকু) ও রাজিয়া বেগমের ছেলে তাজুল ইসলাম তাজ (২০)।
সোমবার দুপুরে আসামীদ্বয়কে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ