জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি প্রার্থী নাজমুলের সাথে ধর্ষকদের ছবি ভাইরাল

নিজস্ব প্রতিবেদক ;
  • প্রকাশিত: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৯:০৪ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৭ মাস আগে

সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজে স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষনের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতাদের সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাসছে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাজমুল ইসলামের অসংখ্য ছবি। কখনো নাজমুলের নিজ হাতে তোলা সেলফি আবার কখনো অন্য কারো হাতে তোলা ছবি। আর এসব ছবিতে চলছে সমালোচনার ঝড়।

অধিকাংশ ছবি ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ছাত্রলীগ নেতা ও মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ এমসি কলেজ শাখার সভাপতি রবিউল হাসানের ফেসবুক থেকে পোস্ট করা। বেশ কয়েকটি ছবিতে দেখা যায় সাইফুল, রবিউলসহ ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত একাধিকজন উপস্থিত। কেবল তাই না, নাজমুল নিজে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত সাইফুরকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন। তিনি সাইফুরের একটি ছবি পোস্ট করে সম্প্রতি তার জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়ে লিখেন ‘শুভ কামনা MM Saifur RAhman চলার পথে সাফল্য যেন নিত্যসঙ্গী হয়। জন্মদিনে অনেক অনেক দোয়া এবং ভালোবাসা রইল’। এমনকি শাহ রণি সিলেটস্থ হবিগঞ্জ জেলা ছাত্র সমন্বয় পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় নাজমুল ইসলাম শাহ রণির একটি ছবি পোস্ট করে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান।

অপরদিকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত রবিউল হাসানের ফেসবুক ওয়ালে দেখা যায় নাজমুল ইসলামের সাথে অসংখ্য ছবি। যার অধিকাংশই নাজমুল ইসলাম নিজ হাতেই সেলফি তুলেছেন। আর এসব ছবির বেশিরভাগই নিজেদের একান্ত বৈঠক কিংবা ভ্রমণের ছবি।

তবে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত একাধিকজনের পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার ছবিও নেহায়েত কম নয়। আবার কখনো রেস্টুরেন্টে বসে খাওয়া কিংবা কারো বাসায় একান্ত আড্ডার মুহুর্তো ক্যামেরা বন্দি করে দেয়া হয়েছে ফেসবুকে। আছে রাজ পথের রাজনীতির বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ছবি। সকল ছবিতেই ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তদের জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাজমুল ইসলামের ছায়াতলে দাঁড়াতে দেখা যাচ্ছে।

অবশ্য শুরু থেকেই গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ৬ জন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকার বলয়ের অনুসারী ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য ও বর্তমান সভাপতি প্রার্থী নাজমুল ইসলাম সমর্থিত ছাত্রলীগ কর্মী হিসেবে জানা গেলেও শেষে তা প্রত্যাখ্যান করলেন নাজমুল। বরং তাদেরকে সুবিধাবাদী বলে উল্লেখ করছেন।

এসব ছবি ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনা দেখে সিলেট ভয়েসের পক্ষ থেকে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাজমুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, যারা ঘটনাটি ঘটিয়েছে তারা সুবিধাবাদী। আমি যেহেতু জেলা ছাত্রলীগের রাজনীতি করি সে ক্ষেত্রে সকলের সাথেই সুসম্পর্ক থাকবে। কিন্তু তাদের সাথে এমন কোন সম্পর্ক নেই। আর তারা নিজেরাই উদ্দেশ্য করে সুবিধা নিতে আমার সাথে ছবি তুলে রেখেছে।

আপনার নিজের ফেসবুক আইডি থেকে তাদেরকে বিভিন্ন সময়ে শুভেচ্ছা এবং তাদের পারিবারিক বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগদানসহ ব্যক্তিগত আড্ডার ছবিও দেখা যাচ্ছে এমন; প্রশ্নে তিনি বলেন, কারো ব্যক্তিগত অপরাধে দায় ছাত্রলীগ নিতে পারে না। ঘটনার আগে জানার কথা না তারা খারাপ না ভালো। আমি সরকারী কলেজে পড়ি আর তারা এমসি কলেজের রাজনীতি করেন। তাই কোন ভাবেই তারা আমার কর্মী বা কিছু হতে পারে না। এটা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবেই অনেকে প্রচার করছেন।

নাজমুল ইসলাম আরও বলেন, আমি নিজেও চাই তাদের শাস্তি হোক। তাদের শাস্তির দাবিতেও আমরাও আন্দোলনে আছি। তাদেরকে আইনের আওতায় এনে যাতে বিচার করা হয় সেটা আমার প্রত্যাশা।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে গণধর্ষণ করেছে মহানগর ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। অভিযুক্ত এসব কর্মীরা সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়াবিষয়ক সম্পাদক রণজিৎ সরকারের অনুসারী বলে জানা গেছে।

এদিকে তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় ৬ জনকে আসামি করে এসএমপির শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নির্যাতিত ওই তরুণীর স্বামী মাইদুল ইসলাম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামিরা হলো- এমসি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা সাইফুর, শাহ রনি, অর্জুন, মাহফুজ, রবিউল ও তারেক।

এদিকে সিলেট এমসি কলেজের হোস্টেলে এক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুরের রুম থেকে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে পুলিশ বাদী হয়ে সাইফুরকে আসামি করে অস্ত্র আইনে এ মামলা দায়ের করে। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহপরান (রহ.) থানার ওসি আব্দুল কাইয়ুম মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে শুক্রবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে হোস্টেলে অভিযান চালিয়ে দেশি-বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করে। অভিযানে একটি বিদেশি পিস্তল, চারটি রামদা, দুটি লোহার পাইপ উদ্ধার করা হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ