শ্রীমঙ্গলে তুচ্ছ ঘটনায় হামলা ভাংচুরঃ ভুক্তভোগীর সংবাদ সম্মেলন

প্রতিনিধি, শ্রীমঙ্গল;
  • প্রকাশিত: ১২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ৯:১৮ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ৭ মাস আগে

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলায় তুচ্ছ ঘটনার জেরে একটি পরিবার ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। ঘটনার সুত্রপাত একটি বাচ্চার জুতা পুকুরে ফেলে দেয়াকে কেন্দ্র করে।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল ভুনবীর ইউনিয়নে বাচ্চার পুকুরে জুতা ফেলে দেওয়াকে কেন্দ্র করে দুই পরিবারের মধ্যে বিবাদ সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতি চরম আকার ধারন করলে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে বাড়িঘর ভাংচুর করে, সংঘাতে রক্তাক্ত আহত হয়েছেন উভয় পক্ষের লোকজন। হয়েছে পাল্টা পাল্টি মামলা।

ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে বাড়ি ছেড়েছেন ভূনবীর ইউনিয়নের শাসন গ্রামের গৃহবধূ জাহেদা আক্তার।
এমন অভিযোগ এনে শুক্রবার রাত ৮টায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলন করেন ভূনবীর ইউনিয়নের শাসন গ্রামের গৃহবধূ জাহেদা আক্তার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন তার দেবর আব্দুস সালাম, প্রতিবেশী ও স্বজন আবুল কালাম, আলিফ মিয়া, মনির হোসেন ও হারুণ মিয়া।

জাহিদা বেগম জানান, ঘটনার সুত্রপাত ৩১- ৮ -২০২০ ইংরেজি বিকাল চারটায় বাড়ির পাশে পুকুরে একটি জুতা ফেলে দেয়া নিয়ে তাকে ও তার সন্তানকে মারধর করে প্রতিবেশি আসলাম মিয়া গং। এ ঘটনায় বিচারে বসলে বিচার শেষে তারা তাদের উপর আক্রমন চালায় ৫-৯-২০২০ ইরেজি তারিখ রাত ৯ টায়। বাড়িঘর ভাংচুর করে লুটপাঠ করে অন্য পক্ষের লোকজন। এ বিষয়ে জাহেদার দেবর সালাম মিয়া শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা করেন। তিনি জানান, তাদের ঘরের দরজা জানালা ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। বর্তমানে তারা এদের ভয়ে বাড়ি ছাড়া। এ বিষয়ে তারা সাংবাদিকদের মাধ্যমে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্শন করেন।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত আসলাম মিয়ার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে তারা তৃতীয় পক্ষের পরামর্শে বড় করেছে। সালাম মিয়াদের হামলায় তাদের পরিবারের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এ বিষয়ে তারাও শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা করেছেন।

এ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস ছালেক জানান, ভূনবীর ইউনিয়নের শাসন গ্রামের দুই পরিবারে হামলা ভাংচুরের ঘটনায় শ্রীমঙ্গল থানায় মামলা হয়েছে, অভিযোগ পেয়েছি ঘটনা তদন্ত করে আইনানুগ ব‍্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ