ইউএনও ওয়াহিদার উপর হামলার ঘটনায় জড়িত কাউকেই ছাড় নয়

সিলেট ডায়রি ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ১ বছর আগে

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানমের উপর হামলার ঘটনায় যারাই জড়িত রয়েছে, তাদের কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।

শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

কামাল বলেন, ‘কী কারণে এমন ঘটনা ঘটলো, তা জানতে কিছুটা সময় লাগবে। পুলিশ ও র‌্যাব এ ঘটনায় যৌথভাবে কাজ করছে। সুশাসন প্রতিষ্ঠায় কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না, সে যত বড় জনপ্রতিনিধি বা সরকারি কর্মকর্তা হোক না কেন।’

তিনি আরও জানান, শুধু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার জন্য নয়, পর্যায়ক্রমে মন্ত্রীদের বাসার নিরাপত্তায়ও আনসার ব্যাটালিয়ান কাজ করবে।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার রাত

আড়াইটার দিকে একদল দুর্বৃত্ত মই বেয়ে ইউএনও ওয়াহিদা খানমের সরকারি বাসভবনে প্রবেশ করে। তারা বাসভবনের ভেন্টিলেটর ভেঙে বাসায় ঢুকে ওয়াহিদা খানমকে হাতুড়ি দিয়ে পেটাতে শুরু করে। এ সময় ইউএনওর চিৎকার শুনে পাশের কক্ষে থাকা তাঁর বাবা ছুটে এসে মেয়েকে বাঁচানোর চেষ্টা করলে দুর্বৃত্তরা তাঁকেও আঘাতে জখম করে। পরে কোয়ার্টারের অন্য বাসিন্দারা তাদের চিৎকার শুনে পুলিশকে খবর দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ওয়াহিদা খানমকে ঢাকায় আনা হয়।

দুর্বৃত্তের হামলায় গুরুতর আহত ওয়াহিদা খানমের অস্ত্রোপচার গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সম্পন্ন হয়েছে। তাঁকে বর্তমানে ৭২ ঘণ্টার পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তিনি এখনো শঙ্কামুক্ত হননি। তবে, তাঁর সেরে ওঠার ব্যাপারে আশাবাদী ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস ও হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

ইউএনও ওয়াহিদা খানমের বাসভবনের নৈশপ্রহরী নাহিদ হোসেন পলাশ ও উপজেলার সিংড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুদ রানাকে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে আজ শুক্রবার ভোরে হিলির কালিগঞ্জ এলাকা থেকে এ ঘটনার প্রধান আসামি আসাদুল ইসলামকে (৩৫) গ্রেপ্তার করে পুলিশ ও র‌্যাবের যৌথ দল। এ ঘটনায় অপর একজনসহ সন্দেহভাজন হিসেবে ঘোড়াঘাট উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক জাহাঙ্গীর আলমকে আটক করা হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ