নবীগঞ্জে আইনশৃংঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা, মাস্ক না পড়লেই জরিমানা

অঞ্জন রায়, নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ;
  • প্রকাশিত: ১৩ আগস্ট ২০২০, ১০:০০ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ৭ মাস আগে

নবীগঞ্জ উপজেলা আইনশৃংঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) সকালে উপজেলা পরিষদের হলরুমে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন। উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফজলুল হক চৌধুরী সেলিম, ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট গতি গোবিন্দ দাশ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমা বেগম, সহকারী কমিশনার (ভুমি) সুমাইয়া মমিন, নবীগঞ্জ থানার ওসি আজিজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহেমেদ মিলু, উপজলো মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নূর উদ্দিন (বীর প্রতিক), নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ সরওয়ার শিকদার, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম আলীবর্দী খাঁন সুজন, উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আব্দুল আউয়াল, হিন্দু বৈদ্ধ্য ঐক্য খিষ্ট্রান পরিষদের সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার পাল হিমেল, ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি ইজাজুর রহমান, চেয়ারম্যান সত্যজিত দাশ, মোঃ আবু সাঈদ এওলা মিয়া, মুহিবুর রহমান হারুন, সাজু আহমদ চৌধুরী, আবু সিদ্দিক, গজনাইপুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহবুব আলী নুরু, প্রভাষক রেজাউল আলম, মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি ইয়াওর মিয়া, সাধারন সম্পাদক মাহবুবুল আলম সুমন, আওয়ামীলীগ নেত্রী ছইফা রহমান কাকলী, প্রমুখ। সভার শুরুতেই জাতীর পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।সভায় সিদ্ধান্ত হয়-সরকারী ও বেসরকারী কোন প্রতিষ্ঠানে মাস্ক পরিধান না করে গেলে কাউকে কোন ধরনের সেবা দেয়া হবেনা। এছাড়া গণপরিবহনেও মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক। মাস্ক পরিধান না করে কেউ ঘর থেকে বের হলে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করা হবে। গ্রাম আদালতের কার্যক্রম আরো জোরদার করার সিদ্ধান্ত হয়। উপজেলায় মাদক নির্মূল করতে পুলিশ প্রসানের প্রতি আহবান জানানো হয়। গজনাইপুর ইউনিয়নের চাল আত্মসাতের ঘটনায় চেয়ারম্যান মুকুল বরখাস্ত হলেও মামলা না হওয়ায় অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন এরই প্রেক্ষিতে উপজেলা খাদ্য বান্ধব কমিটির আগামী সভায় সিদ্ধান্ত হবে বলে জানানো হয়। সভায় গজনাইপুর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সৈয়দ মাহবুব আলী নুরু বলেন তার ইউনিয়নের গ্রামে গ্রাম্য দোকানগুলোতে জুয়া খেলা মাদক সেবন করা হয়। ওই অঞ্চলে দীর্ঘদিন ধরে জুয়া-মাদক ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহবান জানান।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ