কমলগঞ্জে লোডশেডিং, মিটার ভাড়া ও ভুতুড়ে বিল বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ৫ আগস্ট ২০২০, ১:২৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ৯ মাস আগে

মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাসিক ১০ টাকা হারে মিটার ভাড়া, ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল আদায় ও ঘন ঘন লোডশেডিং বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কমলগঞ্জ উপজেলার পতনউষার সচেতন নাগরিক সমাজের আয়োজেন বুধবার বেলা ১টায় পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির (পবিস) পতনঊষার অভিযোগ কেন্দ্রের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
স্থানীয় সমাজসেবক আব্দুল হান্নান-এর সভাপতিত্বে ও যুবনেতা আব্দুল মুকিত হাসানীর সঞ্চালনায় মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন রাজনৈতিক কর্মী আফরোজ আলী, কলেজ শিক্ষক বয়তুল হক চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল মুহিত হাসানী, পতনউষার সচেতন নাগরিক সমাজের সমম্বয়ক ও সমাজকর্মী তোয়াবুর রহমান, বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কমলগঞ্জ ইউনিটের সভাপতি নূরুল মোহাইমীন প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সরকার যেখানে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের কথা বলছে সেখানে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নানা অজুহাত দেখিয়ে প্রতিনিয়ত ঘন্টার পর ঘন্টা লোডশেডিং করে যাচ্ছে। করোনাকালীন সময়েও পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ভুতুড়ে বিল তৈরী করে নিরীহ সাধারণ গ্রাহকদের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। তাছাড়া টাকা দিয়ে মিটার কেনার পরও প্রতি মাসে ১০ টাকা হারে মিটার ভাড়া আদায় করছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির নানা অনিয়ম ও ত্রুুটি-বিচ্যুতির কারণে সাধারণ গ্রাহকরা চরম ভোগন্তির শিকার হচ্ছেন। লোডশেডিং, মিটার ভাড়া ও ভুতুড়ে বিদ্যুৎ বিল আদায় বন্ধ করার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি তারা জোর দাবি জানান।
তবে পবিস কমলগঞ্জ আঞ্চলিক কার্যালয়ের উপ-মহাব্যবস্থাপক গণেশ চন্দ্র দাস মুঠোফোনে বলেন, এখন ৩৩ হাজার কেভি প্রধান গ্রীড লাইনে সমস্যা ও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে ও বৈদ্যুতিক ত্রুটি মেরামতে মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকে। সম্প্রতি গত ২ দিন প্রচন্ড গরমের কারণে গ্রাড লাইনে ত্রুটির কারণে ঘন্টা দেগ বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। বিদ্যুৎ মিটারের ভাড়ার বিষয়টি স্থানীয়ভাবে নয় জাতীয়ভাবে পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড কর্তৃক নির্ধারিত। আর কোন ভুতুড়ে বিল হয় না। যদি কোন মিটারে অতিরিক্ত বিল হয় তা অভিযোগ হলে সাথে সাথে সংশোধন করে দেওয়া হয়।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ