হংকংয়ের সরকারি আবদারে ফেসবুক, টুইটার, গুগল’র – না

প্রযুক্তি ডেস্ক ;
  • প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২০, ৬:৪৭ অপরাহ্ণ | আপডেট: ১ বছর আগে

হংকংয়ের ব্যবহারকারীদের ব্যক্তিগত তথ্য চেয়ে সরকারি কর্তৃপক্ষের কোনোরকম আবদার আমলে নেওয়া হবে না – বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে জায়ান্ট প্লাটফর্ম ফেসবুক, টুইটার ও গুগল। খবর রয়টার্স।

হংকংয়ের ওপর আরোপিত চীনের নতুন রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা আইনের কারণেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো।

এ ব্যাপারে হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইন্সটাগ্রাম’র সত্ত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান ফেসবুক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, হংকংয়ে আরোপিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন আরও মূল্যায়ন করতে চায় তারা। সে কারণে আপাততঃ ওই অঞ্চলের ব্যবহারকারীদের ডেইটা রিভিউ ‘স্থগিত’ রাখা হচ্ছে।

এদিকে, গুগল এবং টুইটার জানিয়েছে, আইনটি গত সপ্তাহে কার্যকর হওয়ামাত্র হংকং কর্তৃপক্ষের অনুরোধে কোনো কোনো পোস্টের ডেইটা রিভিউয়ের কাজ স্থগিত করেছে প্রতিষ্ঠানগুলো। জাতীয় নিরাপত্তা আইনটির প্রয়োগ নিয়ে ‘গভীর উদ্বেগ’ও প্রকাশ করেছে টুইটার।

অন্যদিকে, গুগল আরও জানিয়েছে, ব্যবহারকারীর পোস্ট করা কনটেন্ট সরাতে সরকারি অনুরোধ এলে তা রিভিউ করা হবে। তবে, টুইটার এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। ফেসবুক সরকারের এ ধরনের অনুরোধে সাড়া দেবে না বলে জানিয়েছে।

এর আগে, স্বচ্ছ্তা প্রতিবেদন অনুসারে ২০১৯ সালের দ্বিতীয়ার্ধে হংকং অঞ্চলে ৩৯৪ পোস্টকে আঞ্চলিকভাবে সীমিত করে দেওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছিল ফেসবুক।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘদিন ধরেই হংকংয়ে স্বাধীনভাবে নিজেদের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। চীনা মূল ভূখণ্ডের ফায়ারওয়াল প্রভাব ফেলতে পারেনি শহরটির ইন্টারনেট ব্যবস্থাপনায়। ফলে হংকংয়ে ব্লক গুগল, টুইটার এবং ফেসবুক সচল।

পাশাপাশি, সোমবার (৭ জুলাই) অ্যাপল জানিয়েছে, ব্যবহারকারীর কনটেন্টের ব্যাপারে সরাসরি হংকং সরকারের কাছ থেকে কখনও অনুরোধ আসে না। যুক্তরাষ্ট্র-হংকং আইনি সহায়তা চুক্তির অধীনে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অনুরোধ পেয়ে থাকে অ্যাপল। এবং পরে তা ‘আইন অনুসারে’ রিভিউ করে প্রতিষ্ঠানটি।

এছাড়াও, অ্যাপল এক বিবৃতিতে বলেছে, তারা নতুন আইন মূল্যায়ন করে দেখছে। তবে, আইনটি কার্যকর হওয়ার পর থেকে কনটেন্ট বিষয়ে তারা কোনো অনুরোধ পায়নি।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরী লিঃ