কুলাউড়ায় হাকালুকি হাওড় পাড়ে-ওরুসের নামে উদ্দাম নৃত্যে, বেহায়াপনা

কুলাউড়া প্রতিনিধি;
  • প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২:৫০ পূর্বাহ্ণ | আপডেট: ২ মাস আগে

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার ভুকশিমইল ইউনিয়নের হযরত শাহ রাখাল (রা.) মাজাওে ওরুসের নামে রাতভর চলে উদ্দাম নৃত্য।

১৮ ফেব্রুয়ারি (রোববার) রাতে উপজেলার হযরত শাহ রাখাল (রা:) মাজার শরীফে ৩৯তম ওরুসের নামে এমন অশ্লীল নৃত্যেও আয়োজন কওে মাজার কমিটি।

সরেজমিনে দেখা যায়, মাজারের পেছনে বড় একটি আসর এবং হাকালুকি হাওড়ের মধ্যে (স্থানীয় লোকজনের মতে ডের) আরও ৭টি কাফেলায় গানের আসর বসে। প্রত্যেকটি কাফেলাতে নারী শিল্পীরা গান পরিবেশন করেন।ওরুসে ৭টি কাফেলায় ২৫-৩০ জন নারী শিল্পী অশ্লীল নৃত্য পরিবেশন করেন। মাইক ও সাউন্ড বক্সের বিকট শব্দে এলাকার বৃদ্ধ লোক, রোগী এবং বিশেষ কওে এবারের এসএসসি পরীক্ষার্থীরা ও বাড়িতে ঘুমাতে পারেননি। অনেক হার্টের রোগীদেরও সমস্যা হয়। নামাজের ব্যাঘাত ঘটেছে এমন অভিযোগমু সল্লিদের।

স্থানীয় লোকজন জানান, রাত ১০টার পর থেকেই গানের আসর শুর হয়। এসব আসওে উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রায় হাজার যুবক, যুবতী, নারী ও পুরুষ দর্শক উপস্থিত ছিলেন। সারারাত নারী শিল্পিরা গান পরিবেশন করেন। সকালে কাফেলার নৃত্য শেষ হয়। এসময় গানের তালে তালে যুবক, যুবতী, নারী ও পুরুষ নাচেন। গানের পাশাপাশি চলে গাঁজা সেবন। নেশায় বোধ হয়ে শিল্পীদের গানের সাথে নাচেন যুবক ও যুবতীরা।

এদিকে একই দিন একই ওরুসের বাদে ভুকশিমইল গ্রামের পূর্বপাশে ২টি কাফেলা বসানে াহয়। সেখানেও নারী শিল্পীরা অশ্লীল নৃত্য পরিবেশন করেন বলে স্থানীয়রা নিশ্চিত করেছেন। এমন অশ্লীল কাজের সমালোচনা করছেন স্থানীয়রা। রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক লাইভে এসব গান প্রচারিত হলে তুমুল সমালোচনার ঝড় উঠে। সামাজিক অবক্ষয়ের দাবি কওে এসব বন্ধের দাবি জানান নেটিজেনরা।

স্থানীয় লোকজন জানান, ওরুসকে কেন্দ্র করে ওই মাজারে দু’টিগ্রুপের সৃষ্টি হয়েছে। ভুকশিমইল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ও সাবেক চেয়ারম্যান রয়েছেন দু’টিগ্রুপের।

এবিষয়ে ভুকশিমইল ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান মনির জানান, ওরুসের নামে কি হয়েছে আমার জানা নেই। তিনি সিলেট আছেন বলে জানান। বিষয়টি জানতে পেওে তিনি খোঁজ নিয়েছেন কিন্তু কেউ কিছু বলতে পারেনি।।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি