এবার সিলেটে অটোরিকশা শ্রমিকদের ৫ দফা দাবিতে আন্দোলনের হুশিয়ারী!

সিলেট ডায়রি ডেস্ক;
  • প্রকাশিত: ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৯:৫৮ অপরাহ্ণ | আপডেট: ২ সপ্তাহ আগে

সিলেটে ট্রাক শ্রমিকদের সাড়ে ৫ ঘন্টার অবরোধের পর অটোরিকশা শ্রমিকরা কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার হুশিয়ারী। অটোরিকশা শ্রমিকার জানান ঘোষিত দাবি আদায় না হলে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢানা কর্মবিরতিতে যাবেন তারা।

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরীর কোর্ট পয়েন্টে ৫ দফা দাবি বাস্তবায়নে সিলেট জেলা সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে মানববন্ধনে নেতৃবৃন্দ এ তথ্য জানান।

সিলেট জেলা সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. জাকারিয়া আহমদের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের শাহী ঈদগাহ উপ-পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এম বরকত আলীর সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আজাদ মিয়া, ৭০৭ এর কার্যকরী কমিটির সভাপতি মো. সুন্দর আলী খান প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে জাকারিয়া আহমদ বলেন, দীর্ঘদিন যাবত সিলেটে সিএনজি চালিত অটোরিকশা রেজিস্ট্রেশন প্রদান বন্ধ রাখা হয়েছে। শ্রমিকরা রোজগার না করতে পারায় পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করে। কিন্তু সিলেটের ট্রাফিক বিভাগের অসাধু পুলিশ কর্মকর্তারা পরিবহন শ্রমিকদের অযথা হয়রানি করছে। মামলা ও জরিমানা প্রদান করে যাচ্ছে। যাত্রী পরিবহণেও পাঁচ জনের জায়গায় তিনজন না নিলে ছয় হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করছে। তাদের কারণে যাত্রীদেরও অতিরিক্ত ভাড়া দিতে হচ্ছে। ট্রাফিক বিভাগ পরিবহণ শ্রমিকদের হয়রানি বন্ধ না করলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ৫ দফা দাবি না মানলে কর্মবিরতি দেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, বিআরটিএর দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের কারণে চালকরা সঠিকভাবে লাইসেন্স পাচ্ছে না। আর সে সুযোগ নিচ্ছে অসাধু ট্রাফিক বিভাগের কিছু পুলিশ কর্মকর্তারা। সিলেটের সর্ববৃহৎ শ্রমিক সংগঠনের দায়িত্বশীল হলেও আমাদের কোন প্রতিনিধি আঞ্চলিক পরিবহণ কমিটি আরটিসি সিলেট জেলা ও মেট্রোতে শ্রমিক প্রতিনিধি নিয়োগ দিতে হবে।

৫ দফা দাবি হলো-
ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রাপ্তিতে ও রুট পারমিট, ফিটনেস নবায়নে বিআরটিএ সিলেটের সকল প্রকার দুর্নীতি বন্ধ করতে হবে ও দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের অনতিবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। শো-রুম থেকে ক্রয়কৃত ও রেজিস্ট্রেশনের জন্য ব্যাংকে টাকা জমাদানকারী গাড়িগুলোকে রেজিস্ট্রেশন দিতে হবে। সিলেট জেলা ও মেট্রো আরটিসিতে সিএনজি চালিত অটোরিকশা শ্রমিক প্রতিনিধি নিয়োগ দিতে হবে। সিলেট জেলায় ও মহানগরে অটোরিকশা পার্কিং স্থান দিতে হবে। বিভিন্ন জেলা থেকে আগত অবৈধ সিএনজি অটোরিকশা বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে হবে ও ব্যাটারি চালিত রিক্সা, অটোবাইক, টমটম সহ ইত্যাদি জাতীয় অবৈধ যান দ্বারা যাত্রী পরিবহণ বন্ধ করতে হবে।

ঘোষিত ৫ দফা দাবী আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বাস্তবায়ন না হলে শ্রমিক কর্মবিরতিসহ কঠোর কর্মসূচী পালন করা হবে।

এর আগে মঙ্গলবার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে হঠাৎ সড়ক অবরোধ করেন জেলা ট্রাক পিকআপ কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা। র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)-৯ তাদের চারজন শ্রমিক নেতাকে ধরে নিয়ে গেছে এমন অভিযোগ এনে সড়ক অবরোধ করেন তারা।পরে প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক শেষে রাত পৌনে ১০টার দিকে তারা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।

শেয়ার করুন

এই সম্পর্কিত আরও খবর...

পোর্টাল বাস্তবায়নে : বিডি আইটি ফ্যাক্টরি